শিরোনাম
স্মৃতিসৌধে যাননি ইইউর রাষ্ট্রদূতেরা

স্মৃতিসৌধে যাননি ইইউর রাষ্ট্রদূতেরা

বিজয় দিবস উপলক্ষে আজ সোমবার সকালে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে যাননি ঢাকায় নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) রাষ্ট্রদূতেরা।

নিজেদের সমন্বয় সভার ‘কারণ’ দেখিয়ে আজ বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ না দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন ইইউর রাষ্ট্রদূতেরা। আজ বেলা ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ইইউর রাষ্ট্রদূত উইলিয়াম হানার গুলশানের বাসায় বৈঠক করে বিকেল চারটায় বঙ্গভবনের অনুষ্ঠানে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা।

এ বিষয়ে ‘বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন না ইইউর রাষ্ট্রদূতেরা’ শিরোনামে আজ প্রথম আলোয় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, সরকারের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের মতে, বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া থেকে বিরত থেকে কূটনৈতিক শিষ্টাচার লঙ্ঘন করতে যাচ্ছেন ইইউর রাষ্ট্রদূতেরা।dhaka news2

জানা গেছে, ঢাকায় নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকে গতকাল বিকেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ফ্যাক্সের মাধ্যমে একটি কূটনৈতিক বার্তা পাঠানো হয়। ওই বার্তায় বলা হয়, ইইউর একটি সমন্বয় সভা আজ অনুষ্ঠিত হবে। তাই বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া সম্ভব নয়। আজ সকালে তাঁরা সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে যাননি।

সরকারি সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যায় এ খবর পাওয়ার পর সরকারের দায়িত্বশীল একাধিক কর্মকর্তা বিষয়টি নিয়ে ইউরোপের কয়েকটি দেশের শীর্ষ কূটনীতিকদের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, বিজয় দিবসের সংবর্ধনা রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠান হওয়ায় এতে যোগ দেওয়ার বিষয়টি তাঁরা পুনর্বিবেচনা করতে পারেন। এমনকি সংবর্ধনায় না গেলেও ভোরে স্মৃতিসৌধে যেতে তাঁদের অনুরোধ জানানো হয়। সরকারের পক্ষ থেকে এমন অনুরোধের পরও নিজেদের সিদ্ধান্ত পাল্টাননি ইউরোপের কূটনীতিকেরা।

জানা গেছে, ইইউর এমন অবস্থানে যে সরকার সন্তুষ্ট নয়, সেটি উল্লেখ করে রাতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় একটি বার্তা ইইউর কাছে পাঠিয়েছে। ওই বার্তায় বলা হয়, বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান রাষ্ট্রের অনুষ্ঠান। এমন অনুষ্ঠানে যোগ না দিয়ে ইইউর রাষ্ট্রদূতেরা বাংলাদেশের জনগণকে অসম্মান করতে যাচ্ছেন। বিষয়টি নিয়ে নিজ নিজ রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে আলাপ করার জন্য বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ওই সব দেশের শীর্ষ কূটনীতিকদের বলা হয়। এর পরই জার্মানি, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ড ও সুইডেনের রাষ্ট্রদূতেরা আজ বৈঠক করে বিকেলে অনুষ্ঠানে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

কূটনীতিকদের বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল ১০ ডিসেম্বর। আর গতকাল অফিস ছুটির ঘণ্টা খানেক আগে অনুষ্ঠানে আসতে ইইউর পক্ষ থেকে অপারগতা প্রকাশ করা হয়।

প্রসঙ্গত, ঢাকায় ইইউর সদস্যদেশগুলোর মধ্যে ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ড, স্পেন, সুইডেন ও যুক্তরাজ্য ছাড়াও ইইউর মিশনের দপ্তর রয়েছে।